• ঢাকা
  • শনিবার, ১৫ জুন, ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১, ৮ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘরের খুঁটি ভেঙ্গে কয়েক টুকরা


ঝিনাইদহ প্রতিনিধি
প্রকাশিত: জুলাই ১৭, ২০২১, ০২:৩৫ পিএম
আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘরের খুঁটি ভেঙ্গে কয়েক টুকরা

হস্তান্তরের কয়েক মাসের মধ্যেই ভেঙ্গে পড়েছে ঝিনাইদহ সদর উপজেলার লাউদিয়া গ্রামের মুজিব বর্ষে প্রধানমন্ত্রীর উপহার আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘরের খুঁটি। অন্যান্য ঘরগুলোতেও দেখা দিয়েছে ফাটল। নেই বিদ্যুৎ বা সুপেয় পানির পর্যাপ্ত ব্যবস্থা। ঘর ভেঙ্গে পড়ায় আতঙ্কা দেখা দিয়েছে ওই প্রকল্পে বাসিন্দাদের মধ্যে।

শনিবার (১৭ জুলাই) সকালে লাউদিয়া গ্রামের আশ্রয়ণ প্রকল্পে গিয়ে দেখা যায়, আবাসনের ১নং ঘরের ডানপাশের খুঁটি ভেঙ্গে পড়ে আছে। মাটিতে পড়ে ভেঙ্গে কয়েক টুকরো হয়ে গেছে। ঘর ঠেকাতে সেখানে বাঁশের খুঁটি দেওয়া হয়েছে।

ঘরের বাসিন্দা ফাতেমা খাতুন জানান, শুক্রবার রাত ১০টার পরে ঘরের সামনে কিছু ভেঙ্গে পড়ার শব্দ শুনতে পান তারা। বাইরে বেরিয়ে দেখতে পান ঘরের সামনের ডান পাশের খুঁটিটি ভেঙ্গে পড়ে আছে। ভেঙ্গে কয়েক টুকরো হয়ে গেছে।

ফাতেমা খাতুন বলেন, “খুঁটি ভাঙ্গে পড়ার পর থেকে খুব ভয়ে আছি। কখন জানি ঘর ভাঙ্গে মাথায় পড়ে এই ভয়ে ভয়ে রাত কাটাইছি।”

ওই আশ্রয়ণ প্রকল্পের অন্য বাসিন্দাদের রয়েছে নানা অভিযোগ। বাড়িতে যাওয়ার রাস্তাটিও ব্যবহারের অনুপযোগী। পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নেই সুপেয় পানির। নিম্ন মানের উপকরণ দিয়ে নির্মাণ করা হয়েছে ঘরগুলো। যে কারণে কয়েকমাসের মধ্যেই ভেঙ্গে পড়েছে বলে অভিযোগ বাসিন্দা ও স্থানীয়দের।

ঘরের বাসিন্দা তারা খাতুন বলেন, “প্রধানমন্ত্রী আমাগের ঘর দিয়েছে। আমার এতে খুব খুশি। কিন্তু সেই ঘরে যুদি থাকতি না পারি তাহলে নিয়ে কি করব। সরকার তো কম দিই নি। এই ঘর যারা বানাইছে তারা টাকা মারে খাইছে। এই জন্যি আজ এই দশা।”

ঝিনাইদহ সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম শাহীন বলেন, সরকারের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন করার জন্য রাতের আঁধারে কে বা কারা এই কাজটি করেছে।

এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসক মজিবর রহমান বলেন, ঘটনা শোনার পর সেখানে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে পাঠানো হয়েছে। এছাড়াও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসককে পাঠানো হয়েছে। তারা ঘুরে এসে বিষয়টি জানালে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

Link copied!