• ঢাকা
  • শনিবার, ০২ মার্চ, ২০২৪, ১৭ ফাল্গুন ১৪৩০, ২০ শা’বান ১৪৪৫

এবার আম্পায়াররাও দেখাবেন লাল কার্ড


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: আগস্ট ১৩, ২০২৩, ০৩:৪৯ পিএম
এবার আম্পায়াররাও দেখাবেন লাল কার্ড

ফুটবলে লাল কার্ড হরহামেশাই দেখা যায়। কোনো খেলোয়াড় গুরুতর অপরাধ করলে তাকে লাল কার্ড দেখান রেফারি। এবার ক্রিকেটের মাঠে আম্পায়ারের হাতেও দেখা যাবে লাল কার্ড। ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (সিপিএল) দেখা যেতে পারে লাল কার্ডের ব্যবহার।

ফুটবলের মত ক্রিকেটেও ম্যাচ শেষ করার জন্য নির্ধারিত সময় রয়েছে। এই নির্ধারিত সময় পার হলে যে দলের জন্য সময় নষ্ট হয় তাদের শাস্তির ব্যবস্থা করেন ম্যাচ রেফারি। টি-টোয়েন্টিতে এক ইনিংসে শেষ করার জন্য ৮৫ মিনিট করে বেঁধে দেওয়া আছে। এবার থেকে সিপিএলে এ সময় পার হলে আম্পায়াররা সঙ্গে সঙ্গে ক্রিকেটারদের লাল কার্ড দেখাতে পারবেন।

আগে খেলায় স্লো ওভার রেটের জন্য আর্থিক জরিমানা ও খেলোয়াড়দের নামের পাশে ডিমেরিট পয়েন্ট যুক্ত করা হতো। এখন থেকে আম্পায়াররা লাল কার্ড দেখাতে পারবেন। বৃহস্পতিবার (১৭ আগস্ট) থেকে শুরু হবে সিপিএলের এবারের আসর। এই টুর্নামেন্টে স্লো ওভার রেটের জন্য খেলোয়াড়রা লাল কার্ড দেখবেন।

সিপিএলের নতুন নিয়ম অনুযায়ী, বোলিং দলের ইনিংসে ১৮তম ওভার শুরু করতে হবে ৭২ মিনিট ১৫ সেকেন্ডের মধ্যে। তা না হলে ৩০ গজ বৃত্তের বাইরে একজন ফিল্ডার কম নিয়ে খেলতে হবে তাদের। সেই ওভার শেষ করতে হবে ৭৬ মিনিট ৩০ সেকেন্ডের মধ্যে।

এরপর ১৯তম ওভার ৮০ মিনিট ৪৫ সেকেন্ডের মধ্যে শেষ করতে হবে। তবে সেই ওভার শুরুর আগে ফিল্ডিং দল সময়ের চেয়ে পিছিয়ে থাকলে তখন বৃত্তের বাইরে দুইজন ফিল্ডার কম থাকবেন। অর্থাৎ তখন বৃত্তের বাইরে থাকবে ৪ জন ফিল্ডার। ইনিংসের ১৯তম ওভারেও যদি একই ঘটনা ঘটে তখন একজন ফিল্ডারকে লাল কার্ড দেখিয়ে মাঠের বাইরে পাঠাবেন আম্পায়ার। কোন ফিল্ডার লাল কার্ড দেখবেন সেটা ঠিক করবেন ফিল্ডিং দলের অধিনায়ক।

স্লো ওভার-রেটের কারণে সাধারণত ফিল্ডিং দলই শাস্তি পায়, তবে এবার ব্যাটিং দলকেও শাস্তি ভোগ করেতে হতে পারে। আম্পায়ারের প্রথম এবং শেষ সতর্কতার পর কোনো ব্যাটিং দল যদি সময় নষ্ট করে তাহলে প্রতি সময় নষ্টের ঘটনায় তাদের পাঁচ রান করে কেটে নেওয়া হবে। স্লো ওভার রেটের ব্যাপারটি দেখভাল করবেন তৃতীয় আম্পায়ার। প্রতি ওভার শেষে অন-ফিল্ড আম্পায়ারদের মাধ্যমে অধিনায়কদের সময়ের ব্যাপারে জানিয়ে দেবেন তিনি।

যদিও সিপিএলের টুর্নামেন্ট অপারেশন পরিচালক মাইকেল হল আশা করছেন মাঠে এই শাস্তির প্রয়োগ করতে হবে না। হল বলেন, “আমরা হতাশ, আমাদের টি-টোয়েন্টি খেলাগুলোও প্রতি বছর দীর্ঘ হয়ে যাচ্ছে। এই প্রবণতা বন্ধ করার জন্য, আমরা যা করার তা করতে চাই। খেলাটা চলমান রাখার দায়িত্ব ক্রিকেট সংশ্লিষ্ট সবার। আমরা টুর্নামেন্ট শুরুর আগে ফ্র্যাঞ্চাইজি ও ম্যাচ অফিশিয়াল সবাইকে তাদের দায়িত্ব সম্পর্কে অবহিত করেছি। আশা করছি খেলায় শাস্তির ব্যবহার করতে হবে না।”

Link copied!