• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২০ জুন, ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১, ১৩ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

৬ শিক্ষার্থী হত্যায় ১৩ জনের মৃত্যুদণ্ড, যাবজ্জীবন ১৯ জনের


সংবাদ প্রকাশ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ডিসেম্বর ২, ২০২১, ১১:৪৫ এএম
৬ শিক্ষার্থী হত্যায় ১৩ জনের মৃত্যুদণ্ড, যাবজ্জীবন ১৯ জনের

রাজধানীর আমিনবাজারে ৬ শিক্ষার্থীকে পিটিয়ে হত্যা মামলায় ১৩ জনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এছাড়া ১৯ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২ ডিসেম্বর) দুপুর পৌনে ১২টায় ঢাকার দ্বিতীয় অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক ইসমত জাহান এ মামলার রায় ঘোষণা করেন।

মামলার ৬০ আসামির মধ্যে সব মিলিয়ে সাজা পেয়েছেন ৩২ জন। বাকি সবাই খালাস পেয়েছেন। মামলা চলাকালীন দুই আসামি মারা গেছেন।

গত ২২ নভেম্বর ঢাকার দ্বিতীয় অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক ইসমত জাহান রাষ্ট্র ও আসামিপক্ষের যুক্তি উপস্থাপন শেষে রায় ঘোষণার জন্য এ দিন ধার্য করেন। 

২০১১ সালের ১৭ জুলাই শবেবরাতের রাতে আমিনবাজারের বড়দেশি গ্রামের কেবলার চরে ডাকাত সন্দেহে ছয় ছাত্রকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়। নিহতরা হলো শামস রহিম শামীম (১৮), তৌহিদুর রহমান পলাশ (২০), ইব্রাহিম খলিল (২১), কামরুজ্জামান কান্ত (১৬), টিপু সুলতান (১৯) ও সিতাব জাবির মুনিব (২০)। নিহতদের সঙ্গে থাকা আল-আমিন গুরুতর আহত হলেও প্রাণে বেঁচে যান।

ঘটনার পর নিহতদের বিরুদ্ধে ডাকাতির অভিযোগ এনে সাভার মডেল থানায় মামলা করেন আব্দুল মালেক নামের এক বালু ব্যবসায়ী। অন্যদিকে ছয় কলেজছাত্র হত্যাকাণ্ডে ৬০০ গ্রামবাসীকে আসামি করে হত্যা মামলা করেন সংশ্লিষ্ট থানা-পুলিশের উপপরিদর্শক আনোয়ার হোসেন।

২০১৩ সালের ৭ জানুয়ারি র‌্যাব সদর দপ্তরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শরীফ উদ্দিন আহমেদ ৬০ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন। ওই বছরের ৮ জুলাই মামলার ৬০ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র (চার্জশিট) গঠন করেন ঢাকার দ্বিতীয় অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মো. হেলালউদ্দিন।

এ মামলায় ১৪ আসামি ফৌজদারি কার্যবিধির ১৬৪ ধারায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

Link copied!