• ঢাকা
  • শুক্রবার, ১৪ জুন, ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

শান্তিপূর্ণ সমাবেশ আন্দোলনকে স্বাগত জানাই : কাদের


সংবাদ প্রকাশ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ডিসেম্বর ১, ২০২১, ০৯:৪৬ পিএম
শান্তিপূর্ণ সমাবেশ আন্দোলনকে স্বাগত জানাই : কাদের
ছবি: সংগৃহীত

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, “খালেদা জিয়া মারা গেলে বিএনপি কী পরিস্থিতি তৈরি করবে, কীভাবে একটা গণঅভ্যুত্থান তৈরি করবে। সেই পরিকল্পনার নীলনকশা তৈরি করছে দলটি।”

বুধবার (১ ডিসেম্বর) বিকেলে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন ও দলীয় কর্মসূচি নির্ধারণ উপলক্ষে  আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমণ্ডির কার্যালয়ে দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র এবং মহানগরের দলীয় সংসদ সদস্যদের মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন তিনি।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, “আন্দোলনের নামে দেশে বিশৃঙ্খলা তৈরি করে একটা অশুভ পরিস্থিতি তৈরি করার প্রাণান্তকর অপপ্রয়াস আমরা লক্ষ্য করছি। এই বিষয়গুলো অবশ্যই আমাদের জন্য চ্যালেঞ্জিং। আমরা রাজপথে থাকব, আমরা মোকাবিলা করব। পাশাপাশি আমরা যেকোনো শান্তিপূর্ণ সমাবেশ আন্দোলনকে স্বাগত জানাই। কিন্তু আন্দোলনের নামে যদি সহিংসতার উপাদান যুক্ত হয়। অতীতেও জ্বালাও-পোড়াও করেছে, বাস পুড়িয়েছে, ভূমি অফিস জ্বালিয়েছে,  শত শত মানুষকে পেট্রোল বোমা-আগুন সন্ত্রাসের মাধ্যমে হত্যা করেছে তারা সেই ইতিহাস কিন্তু বেশি দূরের নয়।”

ওবায়দুল কাদের বলেন, “আমরা আশা করছি স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে একটা ঐতিহাসিক আয়োজন করতে পারব। এটা শুধু রাজধানীতে না, সারা দেশেই পালন করতে হবে।”

কাদের বলেন, বিএনপি আজকে বিভিন্নভাবে সামাজিক আন্দোলনকে উসকানি দিচ্ছে। তারা গার্মেন্টস শ্রমিকদের আন্দোলনের পেছনে মদদ দিচ্ছে মাঠে নামার।”

এ সময় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া মারা গেলে দেশের রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে কোনো প্রভাব পড়বে কি না, সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাব কাদের বলেন, “প্রভাব পরবে কি পরবে না? খালেদা জিয়ার মৃত্যু হওয়ার আগেই কেন তার মৃত্যু কামনা করছেন! আমরা তো তার মৃত্যু কামনা করছি না। আমরা চাই তিনি আরোগ্য লাভ করুক।”

কাদের আরো বলেন, “তবে তার মৃত্যুর ব্যাপারে যেভাবে আগে থেকেই বলা হচ্ছে, এতে মনে হয় তারাও চাইছেন যে, খালেদা জিয়ার মৃত্যুটা হোক।”

এছাড়া বিএনপি বিভিন্নভাবে সহিংসতা বিশৃঙ্খলার তৈরির জন্য সর্বাত্মক প্রয়াস অব্যাহত রেখেছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন- আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক, আব্দুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সদস্য কামরুল ইসলাম, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম, এসএম কামাল হোসেন, দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া, উপদপ্তর সম্পাদক সায়েম খান প্রমুখ।

জাতীয় বিভাগের আরো খবর

Link copied!