• ঢাকা
  • বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০, ১৮ শা’বান ১৪৪৫

ইউক্রেনে সবচেয়ে বড় ড্রোন হামলা চালাল রাশিয়া


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: নভেম্বর ২৫, ২০২৩, ০৮:৫৬ পিএম
ইউক্রেনে সবচেয়ে বড় ড্রোন হামলা চালাল রাশিয়া

কিয়েভে ভয়াবহ ড্রোন হামলা চালিয়েছে রাশিয়া। শহরটির মেয়র জানিয়েছেন, ইউক্রেনের রাজধানীতে এটিই রাশিয়ার বৃহত্তম ড্রোন হামলা। শনিবার (২৫ নভেম্বর) স্থানীয় সময় ভোরের আলোর ফোটার আগেই বিস্ফোরণের শব্দে ঘুম ভাঙে কিয়েভের বাসিন্দাদের। এরপর অন্তত ছয় ঘণ্টা ধরে তাণ্ডব চালায় রুশ ড্রোন। শহরের উত্তর ও পূর্ব দিক থেকে ধেঁয়ে আসে একের পর এক হামলা। 

এসব হামলায় ১১ বছরের একটি মেয়েসহ অন্তত পাঁচজন আহত হয়েছে।
ইউক্রেন বিমানবাহিনীর প্রধান মাইকোলা ওলেসচুক বলেন, ইউক্রেনে হামলা চালানো ৭৫টি ড্রোনের ৭১টিই ভূপাতিত হয়েছে।  

তিনি বিমান হামলা প্রতিরোধী ‘মোবাইল ফায়ার’ ইউনিটের কার্যকারিতার প্রশংসা করেন।

ওলেসচুক বলেন, এগুলোই প্রায় ৪০ শতাংশ ড্রোন ভূপাতিত করেছে। সাধারণত এই ইউনিটে দ্রুত পাল্টা ঠেকাতে মেশিনগানসহ ট্রাক প্রস্তুত থাকে।  

মেয়র ভিতালি ক্লিতশকো টেলিগ্রামে বলেন, এ হামলায় ১১ বছরের একটি মেয়েসহ পাঁচজন আহত হয়েছে এবং শহরের নানা জেলায় ভবন ধ্বংস হয়েছে। ভূপাতিত একটি ড্রোনের অংশ থেকে শিশুদের একটি নার্সারিতে আগুন ধরে যায়।

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি বলেন, রাশিয়া এমন এক দিনে হামলা করেছে যেদিন ইউক্রেনীয়রা তাদের জাতীয় শোক পালন করে। ১৯৩২–৩৩ সালের হলোদমোর দুর্ভিক্ষে কয়েক লাখ মানুষের মৃত্যু হয়। সেই সময়কে স্মরণ করে ইউক্রেন এ দিনে জাতীয় শোক পালন করে থাকে।  

তিনি টেলিগ্রামে বলেন, ‘ইচ্ছাকৃত আতঙ্ক... হত্যা করতে পারেন বলে রাশিয়ার নেতা গর্ববোধ করেন।’  

এর আগেও ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট হলোদমোর ও রাশিয়ার বর্তমান অভিযানের মধ্যে সাদৃশ্য দেখিয়েছিলেন।

ইউক্রেনীয় মানুষের ওপর সোভিয়েত ইউনিয়নের গণহত্যা চালানোকে হলোদমোর হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে ইউক্রেন ও অন্যান্য আরও ৩০টি দেশ। সে সময় ইউক্রেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের শাসনাধীন ছিল এবং এর স্বাধীনতার বিরুদ্ধে ছিল।    

ওই সময়ের মৃত্যুগুলো ইচ্ছাকৃত গণহত্যা ছিল–এ দাবি বরাবরই অস্বীকার করে আসছে মস্কো। মস্কো বলে, রাশিয়া ও অন্যান্য জাতিগোষ্ঠীগুলোও এ দুর্ভিক্ষের ভুক্তভোগী হয়েছিল।    

এ হামলার লক্ষ্য তাৎক্ষণিক স্পষ্ট না হলেও ইউক্রেন সম্প্রতি কয়েক সপ্তাহ ধরেই সতর্কতা দিয়ে আসছে। কিয়েভ বলছে, ইউক্রেনের জ্বালানি ব্যবস্থা ধ্বংস করার জন্য রাশিয়া আবারও বিমান হামলা চালাতে পারে। 

সূত্র : রয়টার্স, বিবিসি

Link copied!