• ঢাকা
  • শুক্রবার, ১৯ জুলাই, ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১, ১২ মুহররম ১৪৪৫

শ্রীলঙ্কার সাংবিধানিক সংশোধন চায় বিরোধী দল


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: এপ্রিল ২২, ২০২২, ০৪:৫৯ পিএম
শ্রীলঙ্কার সাংবিধানিক সংশোধন চায় বিরোধী দল
ছবি : সংগৃহীত

অর্থ সংকটে উত্তাল থাকা শ্রীলঙ্কায় এবার সাংবাধানিক সংশোধন দাবি করেছে প্রধান বিরোধী দল সামাগি জনা বালাওয়েগার (এসজেবি)। দলটি ইতোমধ্যে জাতীয় সংসদের স্পিকারের কাছে এ সংক্রান্ত একটি খসড়া জমা দিয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২১ এপ্রিল) শ্রীলঙ্কার বিরোধী দলীয় নেতা সাজিত প্রেমাদসার পক্ষে এই প্রস্তাব দিয়েছে এসজেবির সাধারণ সম্পাদক রঞ্জিত মাদুমা বান্দারা।

সিলন টুডে বলছে, সংবিধান সংশোধনীর বিষয়ে ইতোমধ্যে দেশের সংসদের স্পিকার মাহিন্দা ইয়াপা আবেবর্দেনার কাছে একটি খসড়া জমা দিয়েছে এসজেবি। প্রস্তাবটিতে কার্যনির্বাহী প্রেসিডেন্সির বিলুপ্তি ও সংবিধানের ২০তম সংশোধনীসহ বেশ কয়েকটি সংশোধনী অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

এই প্রস্তাব গৃহীত হলে এটি হবে দক্ষিণ এশিয়ার দ্বীপ রাষ্ট্রটির ২১তম সংবিধান সংশোধন।

এ বিষয়ে এসজেবির সাংসদ হার্শা ডি সিলভা বলেন, “আমরা আশা করি ২২৫ জন সাংসদ সবচেয়ে প্রগতিশীল এই আইনটিকে সমর্থন করবেন। তারা এই সংশোধন তাড়াতাড়ি অনুমোনে সহায়তা করবেন বলে আশা রাখছি।”

দক্ষিণ এশিয়ার ২ কোটি ২০ লাখ জনসংখ্যার দেশটি ১৯৪৮ সালে স্বাধীন হওয়ার পর থেকে সবচেয়ে ভয়াবহ অর্থনৈতিক সংকটে পড়েছে। বিদেশ থেকে পণ্য আমদানির জন্যেও প্রয়োজনীয় বৈদেশিক মুদ্রারও ঘাটতি রয়েছে।

দেশটি বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে আছে। বিক্ষোভ দমনে কয়েক দফা কারফিউ ও জরুরি অবস্থা জারি করে সরকার। যদিও এসব নিষেধাজ্ঞা ধাপে ধাপে উঠিয়ে নেওয়া হয়েছে।

এদিকে আগামী ছয় মাসের জন্য ৩০০ কোটি ডলার বৈদেশিক সহায়তা চেয়েছে চরম অর্থসংকটে থাকা শ্রীলঙ্কা। জ্বালানি, ওষুধসহ প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের সরবরাহ পুনরুদ্ধার করতে এ সহায়তা প্রয়োজন বলে জানান শ্রীলঙ্কার অর্থমন্ত্রী আলী সাবরি। যদিও সহায়তার পাওয়ার বিষয়ে এখনও কিছু জানা যায়নি।

২০১৯ সাল থেকে রাজাপাকসে ও তার পরিবারের সদস্যরা দেশটির প্রশাসনে রয়েছে। কয়েক দশকের মধ্যে সবচেয়ে ভয়াবহ অর্থনৈতিক সংকট মোকাবেলা করছে দক্ষিণ এশিয়ার দ্বীপরাষ্ট্র শ্রীলঙ্কা। দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতিসহ নানা অনিয়মের বিরুদ্ধে দেশজুড়ে চলছে সরকারবিরোধী বিক্ষোভ।

Link copied!