• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই, ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১, ১১ মুহররম ১৪৪৫

ব্রিটেন থেকে কোহিনূর হীরা ভারতে ফিরিয়ে আনার দাবি


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ১৩, ২০২২, ১২:৩৩ পিএম
ব্রিটেন থেকে কোহিনূর হীরা ভারতে ফিরিয়ে আনার দাবি

ব্রিটেনের রানির মুকুটের সবচেয়ে বড় হীরা ‘কোহিনূরকে’ ভারতে ফিরিয়ে আনার দাবি জানিয়েছে ওড়িশার সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন শ্রী জগন্নাথ সেনা। এনডিটিভি জানায়, এর জন্য ভারতের রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মুর হস্তক্ষেপ আহ্বান করেছে তারা।

শ্রী জগন্নাথ সেনার দাবি, কোহিনূর হীরাটি ওড়িশার পুরি অঞ্চলের প্রাচীন দেবতা জগন্নাথের সম্পদ। তাই এটি যুক্তরাজ্য থেকে পুরী মন্দিরে ফিরে আনার উচিৎ। রাষ্ট্রপতির কাছে এর জন্য একটি স্মারকলিপি জমা দিয়েছেন সেনা স্মারকলিপিতে আহ্বায়ক প্রিয়া দর্শন পট্টনায়েক।

প্রিয়া দর্শন পট্টনায়েক দাবি করছেন, পাঞ্জাবের রাজা মহা রঞ্জিত সিং আফগানিস্তানের নাদির শাহের বিরুদ্ধে যুদ্ধে জয়ী হওয়ার পর পুরী দেবতাকে হীরাটি দান করেন। তবে ১৮৩৯ সালে রঞ্জিত সিং মারা যাওয়ার কয়েক বছর পর ব্রিটিশরা তার ছেলে, দলীপ সিংয়ের কাছ থেকে কোহিনূরটি ছিনিয়ে নেয়। ইতিহাসবিদ ও গবেষক অনিল ধীর জানান, হিরাটি যে পুরীর দেবতা জগন্নাথকে উইল করা হয়েছিল সেটা ব্রিটিশরাও জানতো।

অনিল বলেন, “মৃত্যুর আগে রাজা রঞ্জিত সিংয়ের উইলে বলা হয়েছিল তিনি দেবতা জগন্নাথকে কোহিনূর দান করে গেছেন। নথিটি একজন ব্রিটিশ সেনা কর্মকর্তারাও এটির সত্যতা যাচাই করেছে।

দিল্লির ন্যাশনাল আর্কাইভসেও এর প্রমাণ রয়েছে।”

এদিকে পট্টনায়েক দাবি করেন, তিনি এই বিষয়ে রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথকে ২০১৬ সালে একটি চিঠি দিয়েছেন। পরে বাকিংহাম প্যালেস থেকে তার সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। রাজপ্রাসাদ কর্তৃপক্ষ তাকে এ ব্যাপারে যুক্তরাজ্য সরকারের কাছে আবেদন করতে বলেছিল। তবে যুক্তরাজ্যে যাওয়ার জন্য ভিসা বাতিল হয়ে যাওয়ায় তিনি যুক্তরাজ্য সরকারের কাছে আবেদন করতে পারেননি।

এর আগে ওড়িশার ক্ষমতাসীন বিজু জনতা দলের (বিজেডি) সংসদ সদস্য (এমপি) ভূপিন্দর সিং ২০১৬ সালেও রাজ্যসভায় কোহিনূর হীরা ফিরিয়ে আনার প্রস্তাব উত্থাপন করেন।

অন্যদিকে রানী এলিজাবেথের মৃত্যুর পর ব্রিটেনের তার পুত্র প্রিন্স চার্লস এখন ব্রিটেনের রাজা। তাই প্রথা অনুযায়ী, ১০৫ ক্যারেটের হীরাটি এখন চার্লসের স্ত্রী ডাচেস অফ কর্নওয়াল, ক্যামিলার কাছেই থাকবে।

Link copied!