• ঢাকা
  • রবিবার, ২৩ জুন, ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১, ১৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

যারাই ছবিটা দেখবে, মনে দাগ কাটবে : তাসনিয়া ফারিণ


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: মে ২৩, ২০২৪, ০২:১১ পিএম
যারাই ছবিটা দেখবে, মনে দাগ কাটবে : তাসনিয়া ফারিণ

ইত্যাদি অনুষ্ঠানে গান গেয়ে আলোচনার তুঙ্গে তিনি। নান্দনিক অভিনয় দিয়েও দেশে ও বিদেশে প্রশংসা কুড়িয়েছেন । পেয়েছেন আন্তর্জাতিক সম্মাননা। বলছি সময়ের আলোচিত  অভিনেত্রী ও গায়িকা তাসনিয়া ফারিণের কথা। শুক্রবার (২৪ মে) মুক্তি পেতে যাচ্ছে তার অভিনীত সিনেমা ‘ফাতিমা’।  অভিনয় ,গান ও  ক্যারিয়ারের নানা বিষয় নিয়ে কথা বলেছেন ‘সংবাদ প্রকাশ-এর সঙ্গে। তার সাক্ষাতকার নিয়েছেন মো. বাবুল ।

প্রথমেই সিনেমায় আসার গল্প শুনি। 
২০১৬ সালের কথা। তখন মাত্র মিডিয়ায় এসেছি। দুইা-তিনটা বিজ্ঞাপনের কাজ করেছি। সে সময় অফার আসে সিনেমায় অডিশনের। শুভ ভাই (ফাতিমার পরিচালক)অডিশনের জন্য ডাকেন। অডিশনে টিকে যাই। এই তো  প্র্যাকটিসে শেষে ২০১৭ সালে সিনেমার কাজ শুরু করি।

তাহলে ফাতিমা আপনার অভিনীত প্রথম সিনেমা।
হ্যাঁ, ফাতিমা আমার ক্যারিয়ারের প্রথম সিনেমা। ‘দাহকাল’ শিরোনামে ২০১৭ সালে এই  বর্তমানে (ফাতিমা) শিরোনামে সিনেমার মাধ্যমে আমার অভিষেক হয়। তখন আশা করেছিলাম ২০১৮-১৯ সালের মধ্যে সালে সিনেমাটি রিলিজ পাক।  যদিও নানা কারণে তা হয়ে ওঠেনি। পরে মনটা খারাপ হয়ে যায়। সিদ্ধান্ত নিলাম সিনেমায় আর অভিনয় করব না। নাটক, মডেলিং করব। ফাইনালি ২০২৩ সালে এসে অনেক বাধাবিপত্তি পেরিয়ে সেই ‘দাহকাল’ হয়ে যায় ‘ফাতিমা’। ২০১৭ সালে একটা অংশ শুট করা, ২০২৩ সালে এসে আরেকটি অংশ শুট করা। দুইটা সময় মিলে হয়েছে ‘ফাতিমা’।

অবশেষে মুক্তির মিছিলে ফাতিমা, কেমন লাগছে ?
আমি খুবই আনন্দিত এই ব্যপারে যে, আমি যখন কিছুই ছিলাম না, আমাকে চিনতো না, কোনো কাজ করিনি ওই সময় শুভ ভাই আমাকে এই সুযোগটা দিয়েছিলেন। তখন আমি শুধু মাত্র দু-একটি বিজ্ঞাপন করছি। তখন ভাইয়া আমাকে অডিশনে কল করে সুবর্ণা চরিত্রের জন্য। যা-ই হয়েছে, ২০১৭ সালের স্বপ্নটা ২০২৪ সালে এসে কোনো না কোনোভাবে বাস্তবায়ন হচ্ছে। ফাতিমা সিনেমায় আমি নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছি। ফাতিমা চরিত্রটির নাম করণে তৈরি হয়েছে ফাতিমা। আমি খুবই খুশি।

মেক্সিকো, ইতালি, আগামী মাসে লন্ডনে যাচ্ছে। এর আগে ইরানে গিয়েছিল আগস্টে ইটালিতে যাচ্ছি তো ফেস্টিভ্যালগুলোতে প্রচুর প্রশংসিত হচ্ছে।

প্রথম সিনেমা, প্রত্যাশা কেমন, দর্শক কীভাবে নেবে বলে মনে করেন?

আমি মনেকরি সিনেমা যারা বোঝে, মননশীল যে দর্শক আছে তাদের অবশ্যই ছবিটি দেখে ভালো লাগবে। এটা কোন সরল রেখার গল্প না। অডিয়েন্সের ভাবনার গল্প আছে। এই সিনেমায় মুক্তিযুদ্ধটাকে অনেক ডিফরেন্টভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে। সেই সঙ্গে প্যারালাললী এখনকার গল্প আছে। আশা করি দর্শক দেখবে। আরেকটু বলি, এই সিনেমার ক্ষেত্রে একটা সুবিধা হচ্ছে যে, ২০১৭ সালে একবার শুট করা, ২০২০ সালে এসে আরেকবার শুট করা, আমাদের ছবির ক্ষেত্রে এটা সুবিধা ছিল। ২০১৭ সালে  মেয়েটার লুকটা ছিল ১৯৭১ সালের, ২০২০ সালে যেটা একটি পরিপক্ক মেয়ে ফাতিমার চরিত্র, আর ২০১৭ সালেরটা ছিল সুবর্ণার চরিত্র।

৭ বছর দেড়িতে এসে ছবিটি মুক্তি পাচ্ছে, এটা পজিটিভ বলবেন ?

ওই সময় সুবর্ণা চরিত্রের জন্য আনকোরা ফ্রেসনেসটা দরকার ছিল, যেটা পেয়েছে পরিচালক। এখন ২০২৪ সালে এসে ফাতিমার যে পরিপক্কতা দরকার ছিল সেটা হয়তো এই ৫-৬ বছরে আমার মধ্যে এসেছে। সেইটা আমাদের সিনেমায় পজেটিভলি কাজ করছে।

এবার গান নিয়ে বলেন।
গানের প্রচুর অফার আছে, যাই না। প্লেব্যাকের অফার ও আছে। পছন্দ হয় না। ইত্যাদির গানটা পছন্দ হয়েছিল। দর্শক গানটি গ্রহনও করেছে। ভালো গান এলে করব।

আগামীর ভাবনা কী?

প্রত্যেকটা কাজের একটা গোল থাকে। ফাতিমা ছবিটা যখনি করেছি মনে হয়েছিল ফেস্টিভালগুলোতে প্রতিযোগিতায় যাবে। ওই ক্যালিবারের একটা ছবি আর্কাইভেবল ছবি আমার জন্য। প্রথম ছবি, অভিনয়ের যে যায়গাটা সেটা আছে। ছবিটি সমান ভাবে জনপ্রিয় হবে বলে জানি না্। আমার মনে হয় যারাই ছবিটা দেখবে কোনো না কোনো ভাবে মনে দাগ কাটবে, মনে রাখবে। এটাই আমার কাছে বড় পাওয়া। আর আপনারা জানেন, আমার কাজের পরিধি অনেক বড়।  আমি মডেলিং, নাটক, গান, সিনেমা সব জায়গাতেই আমি কাজ করতে চাই। আমার কোন গোল নাই। আমার। সম্ভাবনার শেষ নেই। প্রতিটিা জিনিসের একটা করে সম্ভাবনা তৈরি হয় , যখন  একটা করেন ,একটা করেন না। বর্তমান নিয়েই থাকি  যেটা করছি।

ঈদের নাটকে আপনার উপস্থিতি কতটা থাকছে?
ঈদের কাজ নিয়ে মোটামুটি ব্যস্ততা যাচ্ছে। কিছু কাজ শেষ করেছি, সামনে আরও কাজ করব। তবে কী কী কাজ করছি, তা এখনই বলতে পারছি না। ঈদের আগে এগুলো জানানো হবে। অন্যদিকে ঈদের পরপরই নতুন কাজ নিয়ে হাজির হচ্ছি ওটিটিতে। দর্শকদের জন্য ভালো কিছু অপেক্ষা করছে।

Link copied!