• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল, ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১, ৬ শাওয়াল ১৪৪৫

মাহি রাজনৈতিকভাবে সাফল্য না পাওয়াই কি বিচ্ছেদের কারণ


মো. বাবুল
প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০২৪, ০৯:৩৬ এএম
মাহি রাজনৈতিকভাবে সাফল্য না পাওয়াই কি বিচ্ছেদের কারণ
মাহিয়া মাহি ও রাকিব সরকার

শুক্রবার ( ১৬ ফেব্রুয়ারি) রাতে স্বামী রাকিব সরকারের সঙ্গে বিচ্ছেদের ঘোষণা দেন চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি। আট মিনিটের বেশি সময়ের একটি ভিডিওতে তিনি জানান, কিছুদিন হলো তারা আলাদা আছেন। খুব দ্রুত ডিভোর্সের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করবেন। রাকিবের সঙ্গে মাহিয়া মাহি দুই বছর আগে বৈবাহিক সম্পর্কে জড়ান।

দুজনেরই প্রথম বিয়ের বিচ্ছেদের পর একে অপরকে ভালোবেসে তারা বিয়ের সিদ্ধান্ত নেন। তিন বছরের মাথায় তাদের সংসারে ভাঙনের সুর শোনা গেল। যদিও বিচ্ছেদের কারণ খোলাসা করেননি অভিনেত্রী। শুধু ভিডিও বার্তায় জানিয়েছেন ‘আমাদের দুজনের মধ্যে একটু সমস্যা আছে, তাই বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছি।

২০২১ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর অনেকটা গোপনে রকিবকে বিয়ে করেন মাহি। রাজনীতিবিদ রকিবকে বিয়ের পর থেকেই সিনেমার মাঠ ছেড়ে রাজনীতির মাঠেই সরব হয়ে পড়েছিলেন এই অভিনেত্রী। সে সময় অভিনেত্রী জানিয়েছিলেন রকিবের উৎসাহে রাজনীতির মাঠে সরব তিনি। বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদও পেয়েছিলেন মাহি।

এরপর গত বছরের শুরুর দিকে নিজ এলাকা চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনের উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হওয়ার জন্য মনোনয়ন তোলেন এই নায়িকা। কিন্তু মনোনয়ন পাননি মাহি। তবে তখন থেকেই এলাকায় নানা সামাজিক কার্যক্রমে যুক্ত হতে দেখা যায় তাকে। সঙ্গে সব সময়ই দেখা যেত স্বামীকে। এরপর গেল দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে রাজশাহী-১ ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনের ফরম তুলেছিলেন তিনি।

কিন্তু মনোনয়ন না রাকিব সরকারের  স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছিলেন। কিন্তু  ওই আসনের চৌধুরী সাহেবের কাছে ৯৪ হাজার ৫৮৩ ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হয়েছেন মাহি। বিপুল ভোটে পরাজয়ের পরও রাজনীতি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন মাহি।

কিছুদিন আগেই খবর ছিলো সংরক্ষিত নারী আসনের জন্য আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন ফরম কিনেছিলেন মাহি। তিনি রাজশাহী বিভাগের বুথ থেকে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন বলে জানা গিয়েছিলো। তবে মনোনয়ন পাননি। শোনা যাচ্ছে, মাহি রাজনৈতিকভাবে সাফল্য না পাওয়ায় দূরত্ব বাড়ছে। স্বামী রাকিব নাকি চাইতেন মাহি রাজনীতিতে সরব থাকুক। কিন্তু মনোনয়ন না পাওয়া ও ভোটের মাঠে পরাজয়ের পর থেকেই দুজনের মধ্যে একটু সমস্যা সৃষ্টি হচ্ছে।

তবে বিচ্ছেদ প্রসঙ্গে বিস্তারিত জানতে সংবাদ প্রকাশ থেকে থেকে মাহিয়া মাহি ও রাকিব সরকারের সঙ্গে মোবাইল ও হোয়াটসঅ্যাপে যোগাযোগ করা হলেও কেউ সাড়া দেননি।

এর আগে ২০১৬ সালে সিলেটের ব্যবসায়ী পারভেজ মাহমুদ অপুকে ভালোবেসে বিয়ে করেন মাহি। পাঁচ বছর সংসার করার পর ২০২১ সালের ২২ মে বিবাহিত সম্পর্ক ছিন্নের ঘোষণা দেন তিনি। অপুর সঙ্গে সম্পর্কের ইতি টানার আগেই রাকিবের সঙ্গে সম্পর্কে জড়ানোর বিষয়টি আলোচনায় আসে। এদিকে মাহিও রাকিবের দ্বিতীয় স্ত্রী। রাকিবের আগের সংসারে দুই সন্তান আছে। 

Link copied!